লগ-ইন ¦ নিবন্ধিত হোন
 ইউনিজয়   ফনেটিক   English 
নদী দখলকারীরা যত শক্তিশালী হোক, তাদের ১৩ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকার কি আদৌ তা পারবে?
হ্যাঁ না মন্তব্য নেই
------------------------
নিউজটি পড়া হয়েছে ৮৭০ বার
আবারো বিতর্কে জড়ালেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী
সিলেটঃ সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী শনিবার বিকেলে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় সাংবাদিকদের 'খবিশ' ও 'চরিত্রহীন' বলেন। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংবাদিকদের ঢালাওভাবে ভর্ত্সনা করেন মন্ত্রী।

'খবিশ' ও 'চরিত্রহীন' বলার পর মন্ত্রী অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করলে উপস্থিত সাংবাদিকেরা অনুষ্ঠান বয়কট করেন। এ সময় মিলনায়তনে হট্টগোল শুরু হয়।

সিলেট বিভাগীয় আদিবাসী উদযাপন কমিটি আয়োজিত আদিবাসী দিবসের আলোচনা সভা শুরু হয় বিকেলে। অনুষ্ঠানে সিলেটের সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ বিশেষ অতিথি ছিলেন। বিশেষ অতিথিদের বক্তব্য শেষে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে সমাজকল্যাণমন্ত্রী বক্তব্য শুরু করেন। অনুষ্ঠান আদিবাসী দিবস নিয়ে হলেও পুরো ৪০ মিনিটের বক্তব্যে মন্ত্রী ঘুরেফিরে সাংবাদিকদের সমালোচনা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বক্তৃতা দেওয়ার জন্য তাঁকে আহ্বান করার পর মন্ত্রী মাইক্রোফোনের সামনে এসে সাংবাদিকদের 'সর সর ...' বলে সামনে থেকে সরে যেতে বলেন। 'তোদের মুখ দেখতে আসি নাই...' বলে সাংবাদিকদের মাইক্রোফোনের সামনে থেকে ক্যামেরা নিয়ে চলে যেতে বলেন মন্ত্রী।

সাংবাদিকেরা 'যা ইচ্ছে তা-ই লেখে' দাবি করে তিনি বলেন, 'এরা কেউ জার্নালিজম পড়ে সাংবাদিক হয়নি। একমাত্র আমার মেয়ে জার্নালিজমে এমএ করেছে। আর এরা কলেজে ঘোরাঘুরি করে সাংবাদিক বনে গেছে।'
নেত্রী বলেছেন, যা ইচ্ছে লিখুক, তুমি চালিয়ে যাও
সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, 'আমার নেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ডেকে বলেছেন, হাসানুল হক ইনু ১৪ দলের নেতা, আর তুমি আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতা। সাংবাদিকরা যা ইচ্ছে লিখুক, তাতে কিছু যায়-আসে না। তুমি চালিয়ে যাও।'

মন্ত্রী বক্তৃতার একপর্যায়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রতি অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে 'খবিশ' ও 'চরিত্রহীন' বলে ভর্ত্সনা করেন। তিনি বলেন, 'এরা সবকটা খবিশ, চরিত্রহীন! স্বাধীন কমিশন হতে দে তারপরে দেখে নেব—তোরা (সাংবাদিকেরা) কতটুকু যেতে পারিস!'

'খবিশ' ও 'চরিত্রহীন' বলে মন্তব্যের পর মিলনায়তনে উপস্থিত সাংবাদিকেরা প্রতিক্রিয়া দেখান। সাংবাদিক গ্যালারিতে থাকা সব সাংবাদিক নীরবে বের হয়ে যাওয়ার সময়ও তিনি খবিশ ও চরিত্রহীন বলে গালি দেন। এরপর মিলনায়তনজুড়ে হট্টগোল সৃষ্টি হলে মঞ্চে বসা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও আদিবাসী নেতারা সাংবাদিকদের মিলনায়তন থেকে নীরবে বের হয়ে যেতে সহায়তা করেন।
মফস্বল সংবাদ এর অন্যান্য খবর
 
Editor: Syed Rahman, Executive Editor: Jashim Uddin, Publisher: Ashraf Hassan
Mailing address: 2768 Danforth Avenue Toronto ON   M4C 1L7, Canada
Telephone: 647 467 5652  Email: editor@banglareporter.com, syedrahman1971@gmail.com