লগ-ইন ¦ নিবন্ধিত হোন
 ইউনিজয়   ফনেটিক   English 
নদী দখলকারীরা যত শক্তিশালী হোক, তাদের ১৩ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকার কি আদৌ তা পারবে?
হ্যাঁ না মন্তব্য নেই
------------------------
নিউজটি পড়া হয়েছে ৪৭৩ বার
বাংলা সাহিত্যের অন্যতম কাণ্ডারী
মহাশ্বেতা দেবী আর নেই
বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলাই ২০১৬

উপমহাদেশের অন্যতম প্রধান বাঙালি সাহিত্যিক ও মানবাধিকার আন্দোলন কর্মী মহাশ্বেতা দেবী আর নেই। দীর্ঘ রোগভোগের পর আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।


‘হাজার চুরাশির মা’ খ্যাত এই বিশিষ্ট সাহিত্যিকের বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। গত ২২ মে ফুসফুসে সংক্রমণ নিয়ে কলকাতার একটি বেসরকারি নার্সিং হোমে ভর্তি করা হয়েছিল তাকে। মহাশ্বেতা দেবী কিডনি ও ফুসফুসের জটিলতায় ভুগছিলেন।


বেল ভিউ নাসিং হোমের সিইও পি. ট্যানডোনের উদ্ধৃতি দিয়ে পিটিআই জানায়, মহাশ্বেতা দেবী আজ দুপুর ৩টা ১৬ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি এই হাসপাতালে ছিলেন। বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতা ও শ্বাসকষ্টেও ভুগছিলেন মহাশ্বেতা দেবী।


তাঁর মৃত্যু সংবাদে গোটা বাংলায় গভীর শোকের ছায়া নেমেছে ।


মহাশ্বেতা দেবী ১৯২৬ খ্রীষ্টাব্দে বর্তমান বাংলাদেশের ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মনীশ ঘটক ছিলেন কল্লোল যুগের প্রখ্যাত সাহিত্যিক এবং তার চাচা ছিলেন বিখ্যাত চিত্রপরিচালক ঋত্বিক ঘটক। তিনি ঢাকাতেই লেখাপড়া করেন। তবে ১৯৪৭ সালে দেশবিভাগের পর ভারতে চলে যান। প্রখ্যাত নাট্যকার বিজন ভট্টাচার্যকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। ঝাঁসির রাণী লক্ষীবাইকে নিয়ে প্রথম লিখে সকলের নজরে আসেন। এরপরে তিনি অসংখ্য গল্প উপন্যাস লিখেছেন।


বর্তমান সময়ে সবচেয়ে প্রবীণ সাহিত্যিকদের অন্যতম ছিলেন মহাশ্বেতা দেবী। তার লেখা ‘অরণ্যের অধিকার’, ‘হাজার চুরাশির মা’, ‘অগ্নিগর্ভ’ প্রভৃতি উপন্যাসের জন্য তিনি সমাদৃত হয়েছেন সাহিত্যিক মহলে। তার লেখা অসংখ্য ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ম্যাগসেসে পুরস্কার থেকে শুরু করে জ্ঞানপীঠ, সাহিত্য একাডেমি প্রবর্তিত বহু পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন পদ্মশ্রী ও পদ্ম বিভূষণের মতো জাতীয় সম্মানও। এছাড়া ২০০৭ সালে পেয়েছিলেন সার্ক সাহিত্য পুরস্কার।


বামপন্থী লেখক হিসেবে পরিচিত মহাশ্বেতা দেবী লেখালেখির পাশাপাশি আদিবাসীদের সমাজের জীবন মান উন্নয়নে নিরলস কাজ করেছেন। বিশেষ করে লোধা ও শবরদের জীবন মান উন্নয়নে তিনি দীর্ঘ দিন ধরে লড়াই করে গিয়েছেন।


মহাশ্বেতা দেবীর মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক আজ পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক এবং দুঃখ প্রকাশ করেছেন।


হাসানুল হক ইনু বলেন, মহাশ্বেতা দেবীর লেখনী যুগে যুগে বাংলাভাষাভাষী জনগণকে এবং নিপিড়ীতদের অধিকার অর্জনের আন্দোলনে অমিত প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।

সাহিত্য এর অন্যান্য খবর
Editor: Syed Rahman, Executive Editor: Jashim Uddin, Publisher: Ashraf Hassan
Mailing address: 2768 Danforth Avenue Toronto ON   M4C 1L7, Canada
Telephone: 647 467 5652  Email: editor@banglareporter.com, syedrahman1971@gmail.com