লগ-ইন ¦ নিবন্ধিত হোন
 ইউনিজয়   ফনেটিক   English 
নদী দখলকারীরা যত শক্তিশালী হোক, তাদের ১৩ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকার কি আদৌ তা পারবে?
হ্যাঁ না মন্তব্য নেই
------------------------
নিউজটি পড়া হয়েছে ১৪০ বার
প্রতিবন্ধীদের জন্য
‘যৌন সেবা’
বাংলারিপোর্টার.কম
সোমবার, ০১ মে ২০১৭ 

“জীবনে অনেক ঘাত প্রতিঘাত সহ্য করেছি। এজন্য আমার মতো প্রতিবন্ধী কাউকে দেখলে আমার মন কাঁদে। তাদের মধ্যে আমি নিজেকে খুঁজে পাই। আর এ জন্যই মনে হয়েছিল প্রতিবন্ধীদের জন্য কিছু করা দরকার।” তাইওয়ানের বাসিন্দা ভিনসেন্ট এমনটিই বলছিলেন। তিনি নিজেও প্রতিবন্ধী। ভিনসেন্ট প্রতিবন্ধীদের যৌন সেবা দিতে তাইওয়ান ভিত্তিক “হ্যান্ড অ্যাঞ্জেলস” নামের একটি স্বেচ্ছাসেবামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন।


হাঁটতে শেখার তিন মাসের মাথায় পোলিও রোগে আক্রান্ত হন ভিনসেন্ট। আট বছর বয়স পর্যন্ত মেঝেতে হামাগুড়ি দিয়ে চলাফেরা করতে হয়েছে তাকে। পোস্ট পোলিও সিনড্রমের কারণে ৪৫ বছর বয়সে তাকে বেঁছে নিতে হয় হুইল চেয়ার ।


“হ্যান্ড অ্যাঞ্জেলস” এর কার্যক্রম সম্পর্কে এর প্রতিষ্ঠাতা ভিনসেন্ট জানান, “আমাদের প্রধান কাজ হচ্ছে নারী বা পুরুষকে হস্তমৈথুনে সাহায্য করা। এটি একটি সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া, স্পর্শ থেকে শুরু করে অর্গাজমের চরম পর্যায় পর্যন্ত আমরা সেবা দিয়ে থাকি। আমার শারীরিক চাহিদাও ঠিক একজন সুস্থ ও স্বাভাবিক মানুষের মতো। আমার দুটো হাত আছে এবং আমি আমার চাহিদা মেটানোর জন্য হাতের ব্যবহার করতে পারি। আমার বন্ধু মাঝেমধ্যে এই কাজে আমাকে সহযোগিতাও করে থাকে। কিন্তু এরকম মানুষও আছে যারা তাদের হাত চালনায় অক্ষম। কেউ হাত নাড়াতে পারলেও এর মাধ্যমে যৌন পরিতৃপ্তি মেটাতে পারে না। এরকম মানুষ কি আছে যে তাদের যৌন আকাক্সক্ষা মেটাতে সাহায্য করবে? এই চিন্তা থেকেই হ্যান্ড এঞ্জেলস এর জন্ম।” স্বেচ্ছাসেবকরা এ পর্যন্ত  অক্ষম ৬ জনকে এই সেবা প্রদান করেছেন বলেও জানান তিনি।


ডান নামের এক পুরুষ স্বেচ্ছাসেবক বলেন, “যদিও এই সেবা দিতে ৯০ মিনিটের বেশি সময় লাগে না। তারপরও কাউকে এরকম সেবা দেয়ার আগে আমরা তার অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই। প্রস্তুতি নিতে ক্ষেত্রবিশেষে আমরা ৬ মাস পর্যন্ত সময়ও নিয়ে থাকি”।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নারী গ্রহীতা জানান, “এই প্রক্রিয়ায় আমি সর্বোচ্চ সুখ পেয়েছিলাম এবং আমার মনে হয়েছে যে আমি জীবনে কখনো এতো সুখ পাইনি যা আজ পেলাম। আমি সত্যিই খুব খুশি”।


এই ধরনের সেবাকে অবশ্য অনেকে পতিতাবৃত্তির সাথে তুলনা করে সমালোচনা করেছেন। আনান নামের এক নারী স্বেচ্ছাসেবক জানান, “হ্যান্ড অ্যাঞ্জেলস আইনি প্রক্রিয়া মেনেই তাইওয়ানে সেবা দিচ্ছে। যদি কেউ মনে করে থাকে যে আমি একজন যৌনকর্মী, তাতে আমার কোন আপত্তি নেই। আমি যাকে সেবা দিয়েছি সে শরীর একদমই নাড়াতে পারে না, তাই আমাকেই সবকিছু করতে হয়েছে।” আনান আরও বলেন, “অধিকাংশ ফাউন্ডেশনই ধর্মীয় কিংবা ব্যক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়। চাকরি, জীবন চালনা ইত্যাদি বিষয়গুলোর উপর বেশি জোর দেয় ওই সকল ফাউন্ডেশন। কিন্তু তারা মানুষের যৌন অধিকার নিয়ে সচেতন না। আমাদের সংগঠন ঠিক এই সেবাটিই দিয়ে থাকে।”

স্পেশাল নিউজ এর অন্যান্য খবর
Editor: Syed Rahman, Executive Editor: Jashim Uddin, Publisher: Ashraf Hassan
Mailing address: 2768 Danforth Avenue Toronto ON   M4C 1L7, Canada
Telephone: 647 467 5652  Email: editor@banglareporter.com, syedrahman1971@gmail.com