লগ-ইন ¦ নিবন্ধিত হোন
 ইউনিজয়   ফনেটিক   English 
নদী দখলকারীরা যত শক্তিশালী হোক, তাদের ১৩ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকার কি আদৌ তা পারবে?
হ্যাঁ না মন্তব্য নেই
------------------------
নিউজটি পড়া হয়েছে ১৩৫ বার
রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান সিপিএ'র
বাংলারিপোর্টার.কম
মঙ্গলবার, ০৭ নভেম্বর ২০১৭

কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সম্মেলন থেকে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বিশ্ব সম্প্রদায়কে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়েছে।


মঙ্গলবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত সিপিএর ৬৩তম সম্মেলনের সাধারণ সভা থেকে এ বিষয়ে সর্বসম্মত বিবৃতি দেওয়া হয়। এদিকে সিপিএর নতুন চেয়ারপারসন নির্বাচিত হয়েছেন ক্যামেরুনের ডেপুটি স্পিকার এমিলিয়া মনজোবা লাফাকাও।

 
বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো সন্ত্রাস ও জাতিগত নিধন মিয়ানমার সরকারকে নিঃশর্তভাবে বন্ধ করতে হবে। বাংলাদেশে পালিয়ে আসাসহ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের যত দ্রুত সম্ভব রাখাইন প্রদেশে স্থায়ীভাবে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। মিয়ানমার সরকার রাখাইন প্রদেশে যা করছে তা চরম অন্যায়।’


এ ছাড়াও বিবৃতিতে রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেওয়া এবং তাদের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থানের দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করা হয়। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) অনুষ্ঠিত এ সভায় বিবৃতিটি উত্থাপন করেন সিপিএ সেক্রেটারি জেনারেল আকবর খান। এর পক্ষে সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা, মালয়েশিয়া, সেন্ট ভেনসেন্ট অ্যান্ড গ্রানাডাসহ বেশ ক’টি দেশের ডেলিগেটরা। তবে বারবাডোজের প্রতিনিধি সিপিএর মতো ফোরাম থেকে এ ধরনের বিবৃতি দেওয়া যায় কি-না তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেও তিনি বিবৃতির বিরোধিতা করেননি।


সভায় উপস্থিত সবাই হাত তুলে বিবৃতির পক্ষে সমর্থন ব্যক্ত করেন।


এর আগে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সাধারণ সভা শুরু হয়। সভায় মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই সিপিএর নির্বাহী কমিটির নতুন চেয়ারপারসন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১ নভেম্বর থেকে ঢাকায় শুরু হওয়া এ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম সাধারণ সভার সমাপ্তির মধ্য দিয়েই শেষ হয়।


বিবৃতিটি সভায় উত্থাপন করা হলে এর পক্ষে সমর্থন জানিয়ে মালয়েশিয়ার প্রতিনিধি ড. মোহাম্মদ হাত্তা বলেন, এ বিবৃতির মাধ্যমে বিশ্ব সম্প্রদায়কে একটি বার্তা দেওয়া সম্ভব হবে। তিনি কক্সবাজারের রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকা পরিদর্শনে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, তাদের দেশ থেকে দ্রুত একটি প্রতিনিধি দল কক্সবাজার সফরে যাওয়ার চেষ্টা করবে। একই সঙ্গে তিনি সিপিএর একটি প্রতিনিধি দল মিয়ানমারে পাঠিয়ে এই সম্মেলনের বার্তা তাদের সরকারকে অবহিত করার কথা বলেন।


বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের প্রধান ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, এ সম্মেলনে প্রস্তাব গ্রহণের সুযোগ ছিল না। তারপরও নানা পরিক্রমা পেরিয়ে একটি বিবৃতি সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হওয়ায় তিনি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


আলোচনায় অংশ নেওয়া সব প্রতিনিধি বিষয়টির সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য দেওয়া শুরু করলে সিপিএ চেয়ারপারসন শিরীন শারমিন সবার মতামত আহ্বান করেন। এ সময় উপস্থিত প্রতিনিধিরা হাত তুলে সমর্থন জানান। এর পরই সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এবারের সিপিএ সম্মেলনের সমাপ্তি টানেন শিরীন শারমিন চৌধুরী। এ সময় নবনির্বাচিত চেয়ারপারসন ক্যামেরুনের ডেপুটি স্পিকার এমিলিয়া লাফাকাও (বর্তমান কমিটির ভাইস চেয়ারপারসন) মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।


গৃহীত বিবৃতিতে বলা হয়, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর সরকারকে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে এক হয়ে কাজ করতে হবে। এসব দেশকে একযোগে মিয়ানমার সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে হবে, যাতে তারা দ্রুত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণে বাধ্য হয়। এ ছাড়াও সিপিসির সব আইন সভায় রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো অত্যাচারের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানোর আহ্বান জানান হয়।

জাতীয় এর অন্যান্য খবর
Editor: Syed Rahman, Executive Editor: Jashim Uddin, Publisher: Ashraf Hassan
Mailing address: 2768 Danforth Avenue Toronto ON   M4C 1L7, Canada
Telephone: 647 467 5652  Email: editor@banglareporter.com, syedrahman1971@gmail.com