স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সৈনিক প্রসেনজিৎ বোস আর নেই
মেহেরপুর, ১৩ অক্টোবর: বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সৈনিক প্রসেনজিৎ বোস বাবুয়া আর নেই। সোমবার ভোর ৩টা ৩৩ মিনিটে মেহেরপুর শহরের নিজ ‘বসুভিলা'তে মারা গেছেন। তার মৃত্যুর খবরে মেহেরপুরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সকাল সাড়ে ১০টায় ড. শহীদ সামসুজ্জো পার্কে মেহেরপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট ও জেলা প্রশাসন তাকে গার্ড অব অনারের আয়োজন করেছে। বেলা ১১টায় শবযাত্রা শেষে বামনপাড়া শ্মশানঘাটে তার অন্তেষ্ট্রিক্রিয়া সম্পন্ন হবে।
বাবুয়া বোস স্বাধীন বাংলা বেতারে প্রচারিত নাটক ‘জল্লাদের দরবার’ বেতার নাটকে লারকানার নবাবজাদা ওরফে ভুট্টোর চরিত্রে অভিনয় করেস্বাধীনতা যুদ্ধে স্বাধীনতাকামী মানুষকে উদ্বুদ্ধ করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনে আতিকুল হক প্রযোজিত দীনবন্ধু মিত্রের নীলদর্পণ নাটক সহ বিভিন্ন নাটকে অভিনয় করেন। তার বাড়িটি ছিল মেহেরপুরের সাংস্কৃতিক কর্মিদের মিলনস্থল।
১৯৪০ সালের ১০ অক্টোবর এ অঞ্চলের জমিদার বোস পরিবারের বসু ভিলায় জন্ম গ্রহণ করেন প্রসেনজিৎ বোস বাবুয়া। তার বাবার নাম শ্রী হিরণ কুমার বোস ও মাতা শ্রীমতী অলোকা বোস। আজন্ম অসাম্প্রদায়িক ও প্রগতিশীল ভাবনার এই মানুষটি শিক্ষাগুরু শিবনারায়ণ চক্রবর্তীর কাছে অভিনয়ে হাতেখড়ি নিয়ে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে প্রবেশ করেন। ১৯৭১ সালে তিনি মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। রণাঙ্গনের সৈনিকদের উৎসাহ দিতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সাথে যুক্ত হন। প্রখ্যাত নাট্যকার কল্যাণ মিত্রের আমন্ত্রণে তার লেখা ‘জল্লাদের দরবারে’ নাটকে তিনি প্রখ্যাত অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমাম, আনোয়ারা হোসেন, রাজু আহম্মেদ, আজমল হুদা মিঠু, সুমিতা দেবীসহ অনেক গুণী শিল্পীর সাথে অভিনয় করেন। সাংবাদিক মার্ক টালি তার মেহেরপুরের বাড়িতে আতিথেয়তা গ্রহণ করেন।সরকারিভাবে এ পর্যন্ত এই গুণিজনকে কোন মূল্যায়ন করা হয়নি। সম্প্রতি সময়ে মুক্তিযুদ্ধের সময় তার অবদানের কথা স্বীকার করে শুধু মাত্র চুয়াডাঙ্গার অরিন্দম সাংস্কৃতিকগোষ্ঠী ও মেহেরপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি থেকে তাকে সম্মানিত করা হয়েছে।