মালিকের ‘সর্বনাশ’ করে
বিখ্যাত হল ছাগল!!
বাংলারিপোর্টার.কম
বুধবার, ০৭ জুন ২০১৭

কানপুরের সিলুয়াপুর গ্রামের কৃষক সর্বেশকুমার পালের সর্বনাশ করে ৬৬ হাজার টাকা চিবিয়ে খেয়ে ফেলে রাতারাতি বিখ্যাত হল তার পোষা ছাগল।


ঘটনায় হতবাক সরবেশ কুমার পাল। তারই ৬৬,০০০ রুপির, দু’হাজার রুপির ৩৩ খানা, নোট চিবিয়ে খেল তারই পোষা ছাগল।


পোষা ছাগলের এই কীর্তি দেখে জোর ধাক্কা খেয়েছিলেন সর্বেশকুমার পাল। বাড়ির কাজের জন্য ৬৬ হাজার টাকা নিজের প্যান্টের পকেটে রেখেছিলেন ওই কৃষক। গত সোমবার হঠাৎই সর্বেশ দেখেন, পোষা ছাগল দিব্যি প্যান্টের পকেট থেকে সেই নোট বের করে উদরস্ত করছে। চেঁচিয়ে নিজের পোষ্যকে ভয় পাইয়ে একটা শেষ চেষ্টা করেছিলেন সর্বেশ। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। কোনওক্রমে দু’টি নোট উদ্ধার করতে সক্ষম হন সর্বেশ। কিন্তু সেই নোটও ছিঁড়ে গিয়েছিল। বাকি নোটগুলি অবশ্য ওই ছাগলেরই পেটে গিয়েছে।


সর্বেশের কথায়, ‘‘প্যান্টের পকেটে টাকা রেখে আমি স্নানে গিয়েছিলাম। ফিরে এসে দেখি এই কাণ্ড। কী আর করা যাবে, ও তো আমার সন্তানেরই মতো। দু’টি নোট উদ্ধার করতে পারলেও সেগুলি ছাগলের মুখের লালায় ভিজে ছিঁড়ে গিয়েছিল।’’


যদিও, এই কীর্তি করে গ্রামে রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে গিয়েছে ছাগলটি। অনেকেই ওই ছাগলটিকে দেখতে ওই কৃষকের বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছেন। কেউ কেউ চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন। যাতে ইঞ্জেকশন দিয়ে ছাগলটিকে বমি করিয়ে টাকা উদ্ধার করা যায়। অনেকে আবার মাংস ব্যবসায়ীদের কাছে ছাগলটিকে বিক্রি করার পরামর্শও দিয়েছেন। কারণ ছাগলটি তাঁর এতবড় ক্ষতি করে দিয়েছে। কেউ কেউ আবার মজা করে বলেছেন, ছাগলটিকে পুলিশে দেওয়া হোক। কারণ সে যে বড়সড় অপরাধ করে ফেলেছে।


তবে আর্থিক ক্ষতি হলেও প্রিয় পোষ্যটিকে শাস্তি দিতে একেবারেই মন চাইছে না সর্বেশের। তিনি ও তার স্ত্রী জানাচ্ছেন, ‘নিজেদের পোষ্যের প্রতি তো আর নিষ্ঠুর হওয়া যায় না। ও আমাদের কাছে সন্তানের মতো।‘