মুশফিকের সেঞ্চুরি সত্যেও ১০ উইকেটের হার 
বাংলারিপোর্টার.কম
রবিবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৭

তিনশর কাছাকাছি স্কোর, মামুলি বানালেন কুইন্টন ডি কক ও হাশিম আমলা। একেবারে নির্বিষ বোলিং করেছেন টাইগার বোলাররা। দুই ওপেনারের জোড়া সেঞ্চুরিতে সহজ জয় পেয়েছে সাউথ আফ্রিকা। মুশফিকের সেঞ্চুরি সত্যেও ১০ উইকেটের বড় জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেল স্বাগতিকরা।


এ জয়ের পথে একাধিক রেকর্ড গড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বিনা উইকেটে সর্বোচ্চ রান তাড়া করার রেকর্ড গড়েছে দলটি।ওয়ানডেতে রান তাড়া করতে নেমে বিনা উইকেটে জয়ের রেকর্ডটি এত দিন ছিল ২৫৫ রানের। গেলো বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই রেকর্ড গড়ে ইংল্যান্ড।


এক জুটিতেই অসংখ্য রেকর্ডের মালা গেঁথেছেন ডি কক ও আমলা। গড়েছেন দেশের ইতিহাসে সেরা উদ্বোধনী জুটির রেকর্ড।  অবশ্য আগের জুটিতেও ছিলেন আমলা। তবে সঙ্গী ছিলেন রুশো। ২০১৫ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জোহানেসবার্গে ২৪৭ রানের জুটি গড়েন তারা। এদিন তাদের ছাড়িয়ে গেছেন আমলা-ডি কক। গড়েছেন ২৭৯ রানের জুটি।


বাংলাদেশের বিপক্ষে আগে সেরা উদ্বোধনী জুটি ছিল ২২৫ রানের। ১৯৯৭ সালে নাইরোবিতে এই জুটি গড়েন কেনিয়ার দিপক চুদাসামা ও কেনেডি ওটিয়েনো। সেটিও ছাড়িয়ে গেছেন ডি কক ও আমলা জুটি।


এই নিয়ে সব দেশ মিলিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২শ’ রান এল চারবার। আগের তিনবারের দুই বার ছিল শ্রীলঙ্কান জুটি, একবার কেনিয়ার।


খেলাতে ১৬৮ রানে অপরাজিত থাকেন ডি কক। ১৪৫ বলে ২১ চার ও ২ ছক্কায় এই মহাকাব্যিক ইনিংস খেলেন তিনি। অপর প্রান্তে ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন আমলা।


এর আগে, কিম্বারলিতে টস জিতে মাশরাফির ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত। অফ ফর্মে থাকা সৌম্যের জায়গায় ইমরুলের সঙ্গী লিটন দাস। উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৪৩ রান। লিটন ২১ আর ইমরুল আউট হন ৩১ রান করে।


একে একে টপ অর্ডারের সবাই বিদায় নিলেও একপ্রান্ত আগলে রাখেন মুশফিক। তুলে নেন লড়াকু সেঞ্চুরি। ১০৮ বলে ১০ চার ও ২ ছক্কায় তিন অঙ্কের ঘর স্পর্শ করেন তিনি। এটি তার ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি।


অবশ্য দ্রুততম পাঁচ হাজার রান ও ২০০ উইকেটের ক্লাবে প্রবেশ করেছেন সাকিব। ২৯ করে আউট হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।


শেষ পর্যন্ত স্কোরবোর্ডে ২৭৮ তোলে টাইগাররা। পুরো ফিট না থাকায় খেলেননি তামিম, আর অনুশীলনে চোট পাওয়ায় ছিটকে গেছেন মুস্তাফিজ।