কানাডা আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা
বাংলারিপোর্টার.কম
বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭

টরন্টো সফরে আসা মৌলভিবাজার- ৩ আসনের এম পি সৈয়দা সায়েরা মোহসিন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া – ৫ আসনের এম পি ফায়জুর রহমান (বাদল)  এর সম্মানে কানাডা আওয়ামী লীগ  গত ১৩ নভেম্বর এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।


ডেনফোর্থের মিজান অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত এই সংবর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কানাডা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম মাহামুদ মিয়াঁ।


 এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন কানাডা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সৈয়দ আব্দুল গফফার, সহ সভাপতি গোলাম মুহিবুর রহমান, মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাসিনা আক্তার জানু, তৈমুন্নেছা ফাউন্ডেসনের চ্য্যারম্যন এহিয়া আহাম্মদ, অন্টারিও আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মাসুদ আলী, কানাডা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ জসিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোরশেদ আহাম্মদ মুক্তা, বঙ্গনন্ধু পরিষদের সভাপতি আমিন মিয়া, আওয়ামী লীগের নেতা রাধিকা রঞ্জন চৌধুরী, সাজ্জাদ হোসেন, নবীনগর এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে ডঃ ইঞ্জিনিয়ার শাহ আলমগীর, মৌলভিবাজার এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ এসোসিয়েসনের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদন রেজাউর রহমান, বিদ্যুৎ রঞ্জন দে, ডঃ সুশীতল সিংহ চৌধুরী প্রমূখ। সভা সঞ্চালনা করেন দলের সাধারন সম্পাদক আজিজুর রহমান প্রিন্স।


জাতীয় সংসদের সদস্য  ফায়জুর রহমান বক্তৃতা করতে গিয়ে বলেন, প্রবাসে বিশেষ করে,  টরন্টোর মত কর্মব্যস্ত শহরে শৈত্য আবহাওয়াকে অগ্রাহ্য করে রাজনৈতিক সভায় এমন উপস্থিতি প্রশংসার দাবী রাখে। এমন নিঃশার্থ ভাবে কাজ-কর্ম ফেলে  রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকলে বাংলাদেশেও রাজিনীতির চেহারা বদলে যেত। নিজের নির্বাচনি এলাকা নবীনগরের উন্নয়ন কার্যক্রম এবং পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে বলেন, নবিনগর ঢাকা থেকে খুব বেশী দূরে নয় কিন্তু, ৫০ কিঃ মিঃ পথ যেতে ১২০ কিঃ মিঃ পথ অতিক্রম করতে হয়। সম্প্রতি তিনি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাথে নবিনগরকে সংযুক্ত করে রাস্তা নির্মানের কাজ পাশ হয়েছে বলে জানান।


 প্রাক্তন সমাজ কল্যান মন্ত্রী সৈয়দ মোহসিন আলীর স্ত্রী সৈয়দা সায়েরা মোহসিন  মৌলভিবাজারবাসীর দীর্ঘ দিনের  আকাংখা  একটি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল নির্মানের দাবীকে সামনে নিয়ে এসেছেন বলে তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন। শিক্ষা, স্বাস্থসেবা, বিদ্যুতায়ন সহ মোলভিবাজারের নানা উন্নয়ন প্রকল্পের নানা দিক উল্লেখ করে সৈয়েদা সায়েরা মোহসিন বিশদভাবে আলোচনা করেন।


অনুষ্ঠানের সভাপতি জি এম মাহামুদ মিয়াঁ তার বক্তব্যে অতিথি সহ সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বলেন, বাংলাদেশ এখন ভিন্ন পরিসরে জায়গা করে নিয়েছে। এই কৃতিত্ব  দেশের সরকারের এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রি শেখ হাসিনার। দেশের এই উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীকে সহযোগিতা করেছেন জাতীয় সংসদের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা তাই, সংসদ সদস্যদেরকে উন্নয়নের সহযোগী না বলা হলে ভুল করা হবে। আজকের অতিথিরা এই প্রক্রিয়ার অংশ অবশ্যই।


সংবর্ধনা সভার শুরুতেই সকল শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং সংসদ সদস্যদের কে ফুল দিয়ে অভ্যার্থনা জানানো হয়। প্রথমেই কানাডা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে পুস্পার্ঘ দিয়ে অভ্যার্থনা জানান দলের সভাপতি জি এম মাহামুদ মিয়াঁ। পরে সিনিয়র সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল গফফার দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে পুস্পার্ঘ প্রদান করেন অতিথিদেরকে। ফুল দিয়ে আরও  অভ্যার্থনা জানান বংবন্ধু পরিষদের সভাপতি আমিন মিয়াঁ, বাংলাদেশ ছাত্র লীগ কানাডা শাখার সভাপতি ওবায়দুর রহমান, ডঃ সুশীতল সিংহ  চৌধুরী ও আশিষ পেল। এরপরেই বংবন্ধু পরিষদের সেক্রেটারি ফারহানা শান্তা খালি গলায় বঙ্গবন্ধুর উদ্দ্যশে গান গেয়ে মুগ্ধ করেন সকলকে। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের মেয়র মহিউদ্দিদন চৌধুরী এবং কানাডায় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালামের স্ত্রীর সুস্থতা কামনা করে দোয়া প্রার্থনা করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন দলের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক জনাব মোস্তফা উদ্দিন। বিজ্ঞপ্তি।